ফিরে দেখা সোনারগাঁ: বছর জুড়েই আলোচনায় মামুনুল কান্ড

6

সোনারগাঁ বার্তা ২৪ ডটকম: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ২০২১ সালের পুরো বছর জুড়েই হেফাজতের সাবেক যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের সোনারগাঁ রয়েল রির্সোট কান্ডে আওয়ামী লীগ কার্যালয় ও যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতার বাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় মামলা দায়েরের পর কোনঠাসা হয়ে পড়ে স্থানীয় হেফাজত নেতাকর্মী ও জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা। মামলায় কারবরন করেন জাতীয় পার্টি সমর্থিত ইউপি চেয়ারম্যান , কাউন্সিলর সহ হেফাজতে ইসলামের শীর্ষ নেতারা।

জানা যায়, হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় সাবেক যুগ্ম মহা সচিব মামুনুল হক গত ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে রয়্যাল রিসোর্টে এক নারীর সঙ্গে অবস্থান করছিলেন। পরে খবর পেয়ে ওই সময় স্থানীয় যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্থানীয় নেতাকর্মীরা গিয়ে তাকে ঘেরাও করেন। পরে ওই রিসোর্টে স্থানীয় হেফাজতের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা ব্যাপক ভাঙচুর করে মামুনুলকে ছিনিয়ে নিয়ে গিয়ে মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় অবস্থিত আওয়ামী লীগের কার্যালয়, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম ও ছাত্রলীগ নেতা সোহাগ রনির বাড়িঘর ভাংচুর করা হয়।
ঘটনার পর সোনারগাঁ থানায় হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় যুবলীগ সভাপতি, স্থানীয় সাংবাদিক ও পুলিশ বাদি হয়ে উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি, সাধারন সম্পাদক সহ স্থানীয় হেফাজতে ইসলামের শীর্ষ নেতাদের নামে ও অজ্ঞাত ৫০০/৬০০ জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়। মামলার পরই জাতীয় পার্টি ও হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা গ্রেফতার আতঙ্কে কোনঠানা হয়ে পড়ে। ওই মামলায় উপজেলা জাতীয় পার্টির সভা ও শম্ভুপুরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ, জাতীয় পার্টি সমর্থিত দুজন কাউন্সিলর সহ হেফাজত নেতারা কারাবরন করেন। বর্তমানে জামিনে রয়েছেন তারা। এ ঘটনায় সোনারগাঁয়ে পুরো বছর জুড়েই ছিল আলোচনা।

এছাড়া বছরেরে শেষ দিকে উপজেলার আটটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ও বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন নিয়ে ছিল রাজনৈতিক মহলে আলোচনা। দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় নির্বাচনের মাঠ থেকে ছিটকে পড়েন বারদী ও জামপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান। এছাড়া নোয়াগাঁও ও বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের জনগন পেল নতুন নেতৃত্বে।

6