পরকীয়া প্রেমেই খুন হলেন মিতু

6

সোনারগাঁ বার্তা ২৪ ডটকম: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের মিতুর আক্তার নামে এক গৃহবধু নিখোঁজ হওয়ার পর ময়মনসিংহের ত্রিশাল থেকে তার লাশ উদ্ধারের ২ মাস পর শনাক্ত করেছেন স্বজনরা। লাশটি উদ্ধারের পর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিকেশন (পিবিআই) লাশের পরিচয় নিশ্চিতের জন্য সোনারগাঁ থানা পুলিশকে অবহিত করলে পরে স্বজনরা ছবি দেখে সনাক্ত করেন।

সোনারগাঁ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল কালাম আজাদ জানান, সোনারগাঁ পৌরসভার লাহাপাড়া গ্রামের বেলায়েত হোসেনের স্ত্রী মিতু গত ২৪ ফেব্রুয়ারী নিখোজঁ হন। পরে তার স্বজন কোথাও খুজেঁ না পেয়ে ওই দিন রাতেই তার স্বামী বাদি হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেন। পরে গত ২৫ ফেব্রুয়ারী সোমবার ময়মনসিংহের ত্রিশালের বালিপাড়া ইউনিয়নের কামারিয়াকুল দক্ষিণপাড়া রেললাইনের পাশের ডোবা থেকে ত্রিশাল থানা পুলিশ অজ্ঞাত যুবতীর লাশ উদ্ধার করে কোনো পরিচয় সনাক্ত করতে না পেরে দুই মাস পর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেষ্টিকেশন (পিবিআই) কে ঘটনাটি তদন্ত করার জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়। পরে পিবিআই ওই যুবতীর ব্যাগে সোনারগাঁয়ের স্বদেশ পরিবহন নামে একটি বাসের টিকিট পেয়ে তদন্ত শুরু করে। পরে গত ২৮ এপ্রিল রোববার রাতে  বিষয়টি সোনারগাঁ থানা পুলিশকে অবগত করে যে কোনো যুবতীর নিখোঁজ সাধারন ডায়েরী হয়েছে কিনা। মিতু আক্তার নামের একজন নিখোঁজের বিষয়টি জানানোর পর পিবিআই লাশের ছবি পাঠালে নিখোঁজ মিতুর আক্তারের স্বামীর দায়ের করা সাধারন ডায়েরীর ছবির সঙ্গে মিতুর ছবির মিল খুজেঁ পেলে স্বজনদের জানানো হয়। পরে মিতুর স্বামী বেলায়েত হোসেন এসে তার স্ত্রীর ছবি দেখে সনাক্ত করেন।  লাশ ময়নাতদন্তের পর কোনো পরিচয় না পাওয়ায় তাকে দাফন করে দেওয়া হয় এবং অজ্ঞাতনামা আসামী করে ত্রিশাল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে পুলিশ।  

তিনি আরো জানান, ধারনা করা হচ্ছে পরকীয়ার কারনেই মিতুর আক্তার খুন হতে পারেন। নিখোজঁ হওয়ার পর মিতুর বাসায় গিয়ে তার মেয়ে বারসাত এর সঙ্গে কথা হলে সে জানায় আমার আব্বু বাসায় না থাকলে আমার আম্মু ইমুতে একা একা কার সঙ্গে যেন কথা বলতো। আমরা সামনে চলে আসলে এবং আব্বু বাসার সময় হলে কথা বন্ধ করে দিতেন।

মিতুর স্বামী বেলায়েত হোসেন জানান, সোনারগাঁ পৌরসভার লাহাপাড়ার বাসা থেকে মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় যাবে বলে গত ২৪ ফেব্রুয়ারী মিতু আক্তার বাসা থেকে বের হওয়ার পর থেকেই নিখোঁজ রয়েছে। বিভিন্ন স্থানে খোজাখুজি করে না পেয়ে ওই দিন রাতেই সোনারগাঁ থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করা হয়। পরে ২৮ এপ্রিল রাতে সোনারগাঁ থানা পুলিশের মাধ্যমে আমাদের কাছে খবর পাঠায় অজ্ঞাত লাশ পাওয়া গেছে। খবর পেয়ে পুলিশের কাছে লাশের ছবি দেখে মিতুকে সনাক্ত করা হয়।

মিতু আক্তার সোনারগাঁ পৌরসভা লাহাপাড়া গ্রামের ওহাবের ছেলে বেলায়েত হোসেনের স্ত্রী এবং বৈদ্যেরবাজার এলাকার মোজাম্মেল হোসেনের মেয়ে। তার বারসাত নামের ৭ বছরের একটি মেয়ে ও রাতুল নামের ১৫ মাসের একটি ছেলে রয়েছে।    

 

6